বাংলাদেশ

ঠাকুরগাঁওয়ে নির্বাচনী সহিংসতায় নিহত ৪

ঠাকুরগাঁওয়ের পীরগঞ্জ উপজেলার খনগাঁও ইউনিয়নে ফলাফল ঘোষণাকে কেন্দ্র করে সহিংসতায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাড়িয়েছে চারজনে। সোমবার (২৯ নভেম্বর) ভোরে আহত অবস্থায় রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে মারা যান মাঝারুল (৪০) ও এইচএসসি পরীক্ষার্থী আদিত্য রায় (১৭)। 

এছাড়া, সকালে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রহিমা বেগম মারা যান। এর আগে রোববার রাতে শাহপলি (২৭) নামে একজন ঘটনাস্থলেই মারা যান।

রোববার রাতে ভোটকেন্দ্রে দায়িত্বরত গ্রাম পুলিশ জানান, ভোট শেষ হওয়ার পর ফলাফল ঘোষণা করতে দেরি করছিল প্রিসাইডিং কর্মকর্তা। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে প্রিসাইডিং কর্মকর্তার সঙ্গে স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নুরুজ্জামানের সমর্থকদের বিতর্ক হয়। পরে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা নৌকার প্রার্থী শহীদ হোসেনকে বিজয়ী হিসেবে ঘোষণা করেন। ফলাফল ঘোষণার পর নাখোশ কিছু এলাকাবাসী ভোটকেন্দ্র অবরুদ্ধ করে। এতে প্রিসাইডিং কর্মকর্তা পালাতে সক্ষম হন। তবে একটি রুমে তিনজন পুলিশ ও ১২-১৩ জন আনসার সদস্য আটকা পড়েন।

পীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জাহাঙ্গীর আলম বলেন, নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা সদস্যরা কোনোভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পারছিল না। নিজেদেরই হামলার স্বীকার হতে হয়েছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিজিবি সদস্যদের ছোড়া গুলিতে ঘটনাস্থলে একজন নিহত হয়েছে। এছাড়া আহত আরও তিনজন মারা গেছে। তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করে থানায় নেওয়া হয়েছে। মরদেহগুলো ময়নাতদন্তের জন্য হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হবে।

মতামত দিন