খেলাধুলা

আমি রেকর্ডের পেছনে ছুটি না, রেকর্ড আমার পেছনে ছোটে: রোনালদো

বিশ্বের অন্যতম সেরাদের সেরা ফুটবলার ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো। ফুটবলের বহু রেকর্ড স্পর্শ করেছেন এই তারকা। ভেঙেছেন আবার নিজেও করেছেন। ক্যারিয়ারে পড়ন্ত বেলায়ও রয়েছেন দুর্দান্ত ফর্মে। বয়সটা ৩৭ পার হওয়া এই তারকা জানিয়েছেন সকল রেকর্ড আপনা আপনিই তার কাছে ধরা দিচ্ছে।

পাঁচ বারের ব্যলন ডিঅর জয়ী এ তারকা আন্তর্জাতিক ফুটবলে সবচেয়ে বেশি গোলের রেকর্ড গড়ার পর সব ধরণের ফুটবলের গোলেও নিজেকে নিয়ে গেছেন সর্বোচ্চ চূড়ায়। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের এক আসরের সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ডটিও তার দখলে। বিশ্বকাপ শিরোপা ছাড়া প্রায় সব ধরণের ট্রফিই স্পর্শরে সুযোগ পেয়েছেন রোনালদো। 

এবারের কাতার বিশ্বকাপে হয়তো সে সুযোগটাও পেয়ে যেতে পারেন। কারণ দুর্দান্ত একটি দল নিয়েই মধ্যপ্রাচ্যের দেশটিতে যাচ্ছে পর্তুগাল।

ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডে থেকে আলোচনায় আসা রোনালদো ক্যারিয়ারের শেষ প্রান্তে দাঁড়িয়ে আবারও ফিরে যান ক্লাবটিতে। সম্প্রতি ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের চ্যাম্পিয়ন্স লিগে জায়গা না হওয়া এবং কোচ পরিবর্তনের কারণে রোনালদোর থাকা না থাকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। তবে সব কথার সমাপ্তি টেনে দিয়েছেন সিআর সেভেন। জানিয়ে দিয়েছেন শেষ পর্যন্ত ওল্ড ট্রাফোর্ডেই থাকছেন তিনি।

শুক্রবার ক্লাবের ওয়েবসাইটের সঙ্গে আলোচনা কালে বিষয়টি জানিয়েছেন রোনালদো। তিনি বলেন, যেখানে আমার ক্যারিয়ার বিকশিত হয়েছে, সেই ক্লাবে ফিরে আসতে পেরে আমি সত্যিই খুশি ছিলাম। এটা অবিশ্বাস্য ছিল। যখন আমি (আবার) ফিরে আসি তখন সমর্থকদের অনুভব করতে পেরে ভালো লেগেছিল। তাদের খুশি দেখা সত্যিই দারুণ। আমি ছিলাম এবং এখনও আছি- এখানে থাকতে পেরে খুব খুশি।

রোনালদো বলেন, আমি বিশ্বাস করি যে ম্যানচেস্টার সেখানেই থাকবে যেখানে তাদের থাকা উচিত। আমি আগেই বলেছি, মাঝেমধ্যে সময় লাগে, আমি এখনো তাই বিশ্বাস করি। রেকর্ডগুলো স্বাভাবিকভাবে আসছে। আমি রেকর্ডের পেছনে ছুটি না, রেকর্ড আমার পেছনে ছোটে। তাই এটা ভালো।

তিনি আরও বলেন, এটা এখনো চালিয়ে যাওয়া আমার অনুপ্রেরণা। শুধু কঠোর পরিশ্রম করছি। আমি এখনো এই খেলার প্রতি আবেগ ও ভালোবাসা আছে। অবশ্যই, ম্যানচেস্টার এবং আমার সতীর্থরা আমাকে সর্বাত্মক সাহায্য করেছে তাই ওই সকল লোকের প্রশংসা করতে হবে, যারা ক্রিস্টিয়ানোকে সাহায্য করেছে।

মতামত দিন