জাতীয়

করোনা ও রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের মাঝেও রফতানি আয়ে রেকর্ড বাংলাদেশের

একদিকে করোনা মহামারি অন্যদিকে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। এর মাঝেও ২০২১-২০২২ অর্থবছরে প্রথমবারের মতো রফতানি আয়ে মাইলফলক অর্জন করেছে বাংলাদেশ। গত অর্থবছরে বাংলাদেশ লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে ৫২.০৮ বিলিয়ন ডলার রফতানি করেছে। যা এর আগের অর্থবছরের তুলনায় ৩৪ দশমিক ৩৮ শতাংশ বেশি। রবিবার (৩ জুলাই) রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (ইপিবি) রফতানি আয়ের এ তথ্য প্রকাশ করেছে।

ইপিবির তথ্য অনুযায়ী, এর আগের বছর রফতানি আয় ছিল ৩৮ দশমিক ৭৬ শতাংশ। ২০২১-২২ অর্থবছরে রফতানির লক্ষ্যমাত্রাও ছাড়িয়েছে, যা ৪৩ দশমিক ৪ বিলিয়ন নির্ধারণ করা হয়েছিল। গত অর্থবছরের ১২ মাসে বাংলাদেশ থেকে পাঁচ হাজার ২০৮ কোটি ২৬ লাখ ডলারের পণ্য রফতানি হয়েছে, যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ১৯ দশমিক ৭৩ শতাংশ এগিয়ে এবং আগের অর্থবছরের চেয়ে ৩৪ দশমিক ৩৮ শতাংশ বেশি।

এর আগে ২০২০-২০২১ অর্থবছরে সর্বসাকুল্যে তিন হাজার ৮৭৫ কোটি ৮৩ লাখ ডলারের পণ্য রফতানির ওপর ভিত্তি করে পরের বছরের জন্য চার হাজার ৩৫০ কোটি ডলারের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল।

রফতানি আয়ে সবচেয়ে বেশি গার্মেন্টস সেক্টর ২০২২ অর্থবছরে ৪২.৬১ বিলিয়ন ডলার আয় করেছে। এ খাতে আয় বেড়েছে ৩৫.৪৭ শতাংশ, যা ২০২১ অর্থবছরেও ৩১.৪৫ বিলিয়ন ডলার ছিল।

রফতানি ৫০ বিলিয়ন ডলারের মাইলফলক অর্জনকে বাংলাদেশের জন্য বড় প্রাপ্তি হিসেবেই দেখছেন নীতিনির্ধারক, ব্যবসায়ী ও অর্থনীতিবিদরা। একইসঙ্গে এ অগ্রযাত্রা টেকসই করতে সরকার ও ব্যক্তি খাতকে আরও নিবিড়ভাবে কাজ করে যেতে হবে বলে মত দিয়েছেন তারা।

খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, পদ্মা সেতু উদ্বোধনের বছরেই দেশের রফতানি প্রথমবারের মতো ৫০ বিলিয়ন ডলার ছাড়ানোর বিষয়টি একটি প্রতীকী ঘটনা, যা উদীয়মান রফতানি কেন্দ্র হিসেবে বিশ্বে বাংলাদেশের অবস্থান নিয়ে বিশেষ বার্তা বহন করছে।

মতামত দিন