বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ | ১২:৫৯:৪৪

মোহনা সংবাদ ২৪ ডট কম

সিনেপাড়ার পোস্টমর্টেম: বছর শেষে শাকিব খানই ভরসা

It Admin Mohona, Mohona Songbad | আপডেট: ২২:৫০, ডিসেম্বর ২৬, ২০১৯

বছর প্রায় শেষ। আর মাত্র পাঁচ দিন বাকি। নতুন বছরে উৎসবে মাতবে সবাই। নতুন ক্যালেন্ডার শোভা পাবে ঘরের দেয়ালে দেয়ালে। কিন্তু ঢাকাই ছবির জগতে নেই উৎসবের ছোঁয়া। বরং হা-হুতাশ ও হতাশার মধ্যেই শেষ হয়ে গেল আরও একটি বছর।

অথচ, গত কয়েক বছরের মতো এবারও শাকিব খানকে ভরসা করেও হতে পারত আনন্দ, উৎসব। কিন্তু হয়েছে কী?

ভালো-মন্দ মিলিয়ে বছর কেটেছে- এমনটি মিডিয়ার অন্যান্য ক্ষেত্রে ঘটলেও ছবির বাজারে এ বছরের পুরোটাই ‘মন্দ’। মাত্র একটি ছবি কোনোভাবে সফল হলেও চলতি বছর মুক্তি পাওয়া বাকি ৫৬টি ছবির কোনোটি খুঁড়িয়ে খুঁড়িয়ে পথ চলেছে, কোনোটি কয়েক পা এগিয়েই থমকে গেছে, আবার কোনোটি এক পা এগোতেই মুখ থুবড়ে পড়েছে। মুক্তি দিয়েই শেষ- এমন ছবির সংখ্যাই ছিল বেশি। অন্যদিকে কিছু কিছু ছবি কবে নাগাদ মুক্তি পেয়েছে সে খবরই জানতেন না কেউ।

চলতি বছর শাকিব খানের ‘পাসওয়ার্ড’ই একমাত্র ছবি হিসেবে ব্যবসাসফল তালিকায় নাম লেখাতে পেরেছে। যদিও ‘তালিকা’ বলাটা একেবারেই সঠিক নয়। কারণ একের কোনো তালিকা হয় না। তাই বলা যায়, বছরের পুরো সময়টাই মন্দার বাজারে ঢেঁকুর তুলতে ব্যস্ত ছিলেন সিনে সংশ্লিষ্টরা।

অথচ শাকিব খানকে ভরসা করে এগিয়ে যেতে পারত ইন্ডাস্ট্রি। কিন্তু সেখানেও কিছুটা থমকে দাঁড়াতে হয়েছে। কারণ এ নায়ককে নিয়ে বেশ উৎসাহের সঙ্গেই পরীক্ষিত নির্মাতা জাকির হোসেন রাজু এ বছর ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’ নামে একটি ছবি নির্মাণ ও মুক্তি দিয়েছিলেন।

কিন্তু বাংলাদেশের এ সময়ের শীর্ষ নায়ককে নিয়েও তাকে ডুবতে হয়েছে। এর জন্য অবশ্য সময়কে দায়ী করেছেন নির্মাতা। যদিও একই নায়কের ‘পাসওয়ার্ড’ ছিল ব্যবসাসফল। তাই নির্মাতা কর্তৃক দায়ী করা ‘সময়’ যে ভুল ছিল সেটা স্পষ্ট। অনেকেই বলছেন, শাকিবেও ভরসা করে রক্ষা পায়নি ইন্ডাস্ট্রি। কিন্তু আদপে কী তাই? শাকিব খান যদি ‘পাসওয়ার্ড’ দিয়ে সফলতা ঘরে তুলতে পারেন, তাহলে অন্য নির্মাতারা তাকে নিয়ে পারেননি কেন? ব্যর্থতা বিচারের দায়ভার পাঠক ও দর্শকদের জন্যই তোলা থাকল।

বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক ও পরিবেশক সমিতির তথ্যমতে, চলতি বছর দেশি, যৌথ প্রযোজনা ও আমদানি মিলিয়ে ৫৭টি ছবি মুক্তি পেয়েছে। এর মধ্যে যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত ছবি দুটি। এগুলো হচ্ছে- ‘প্রেম আমার-২’ ও ‘তুই আমার রানী’। ভারত থেকে সাফটা চুক্তির আওতায় আমদানিকৃত ছবির সংখ্যা ১০টি। এগুলো হচ্ছে- ‘বিসর্জন’, ‘ভোকাট্টা’, ‘কিডন্যাপ’, ‘শেষ থেকে শুরু’, ‘বিবাহ অভিযান’, ‘প্যানথার’, ‘বচ্চন’, ‘কণ্ঠ’ ‘জানবাজ’ ও ‘পাসওয়ার্ড (দেব)। দেশীয় ছবি মুক্তি পেয়েছে ৪৭টি।

এর মধ্যে শাকিব খান অভিনীত ছবি রয়েছে ৩টি। বাপ্পি চৌধুরী অভিনয় করেছেন ৩টি ছবিতে, ইমন অভিনয় করেছেন ২টি ও আরেফিন শুভ, জায়েদ খান, নিরব এবং সিয়ামকে দেখা গেছে মাত্র একটি ছবিতে। পরিচিত নায়কদের মধ্যে এটাই হচ্ছে ছবির পরিসংখ্যান। পরিচিত নায়িকাদের মধ্যে নুসরাত ইমরোজ তিশা ৩টি, মৌসুমী ২টি, বুবলী ২টি, জয়া আহসান ২টি, মাহিয়া মাহি ২টি, ববি ২টি, আইরিন ২টি এবং বিদ্যা সিনহা মিম, পূজা চেরি ও পরীমনিকে দেখা গেছে একটি ছবিতে।

নায়কদের হিসাব-নিকাশ

একমাত্র শাকিব খান অভিনীত ছবি ছাড়া কলকাতার নায়কদের অভিনীত আমদানিকৃত ছবি বাংলাদেশে কখনই সফলতার মুখ দেখেনি। এবারও তার ব্যতিক্রম নয়। এ বছর যৌথ প্রযোজনার ছবিও বাংলাদেশে মুখ থুবড়ে পড়েছে।

চলতি বছর শাকিব খানের মুক্তিপ্রাপ্ত ছবি ছিল ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’ ‘পাসওয়ার্ড’ ও ‘নোলক’। এর মধ্যে দুটি ছবির নায়িকা বুবলী এবং নোলকের নায়িকা ছিলেন ববি। ‘পাসওয়ার্ড’ ছাড়া অন্য দুটি ছবি ব্যবসায়িকভাবে ব্যর্থ ছিল। বাপ্পি অভিনীত মুক্তিপ্রাপ্ত ছবিগুলো ছিল ‘দাগ হৃদয়ে’, ‘পাগলামী’ ও ‘ডনগিরি’। এর মধ্যে কোনোটিই সফলতার মুখ দেখেনি। ইমন অভিনীত ‘আকাশ মহল’ এবং ‘বেগমজান’ ছবিগুলোও ছিল তথৈবচ।

নিরবের ‘আব্বাস’কে সফল বলে দাবি করলেও ব্যবসায়িক হিসেবে আসলে সেটি ছিল স্ট্যান্টবাজি। আরেফিন শুভর ‘সাপলুডু’ প্রশংশিত হলেও ব্যবসায়িক সফলতা নেই। সিয়ামের ‘ফাগুন হাওয়া’ বেশ প্রশংসিত হয়েছে। কারণ এর নির্মাতা ছিলেন তৌকীর আহমেদ। জায়েদ খানের ‘ভালোবাসার আগুন’ ছবিটি শুরুতেই আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে গেছে। চলতি বছর এ সময়ের নায়ক সাইমন সাদিকের কোনো ছবি মুক্তি পায়নি।

নায়িকারা কী করেছেন

অন্যদিকে শাকিব খানের সঙ্গে জুটি বেঁধে অভিনয় করা বুবলীর এ বছর ছবি মুক্তি পেয়েছে দুটি। ‘মনের মতো মানুষ পাইলাম না’ ও ‘পাসওয়ার্ড’। এর মধ্যে ‘পাসওয়ার্ড’ সফলতা পেয়েছে সেটা আগেই বলা হয়েছে। তা ছাড়া এ নায়িকার ভাগ্য যাচাই করার সময় এখনও আসেনি। কারণ শাকিবের কল্যাণে হিট নায়িকার তকমা তিনি পেয়েছেন ঠিকই, তবে ভাগ্য যাচাইয়ে নামতে হলে তাকে শাকিব খান থেকে আলাদা হতে হবে। এবং সেটা চলতি বছর হয়েছেনও।

নিরবের সঙ্গে জুটি বেঁধে ‘ক্যাসিনো’ নামে একটি ছবিতে অভিনয়ও করছেন। যার ফলাফল পেতে অপেক্ষা করতে হবে আগামী বছর পর্যন্ত। চলতি বছরের সর্বাধিক মুক্তিপ্রাপ্ত ছবির নায়িকা নুসরাত ইমরোজ তিশা। তার অভিনীত ‘ফাগুন হাওয়ায়’, ‘মায়াবতী’ ও ‘ইতি তোমারই ঢাকা’ নামে তিনটি ছবি মুক্তি পেয়েছে। বাণিজ্যিক সফলতার পথে না হাঁটলেও এ নায়িকার ছবিগুলো কিন্তু প্রশংসিত।

মৌসুমী অভিনীত ‘রাত্রির যাত্রী’, ‘লিডার’ ছবিগুলোর সফলতার কথা না বলাই ভালো। জয়া আহসান অভিনীত ‘বিসর্জন’ ও ‘কণ্ঠ’- দুটিই ছিল কলকাতা থেকে আমদানি করা ছবি। ব্যবসায়িক তালিকায় দুটি ছবিই ব্যর্থ। তবে ছবিগুলোয় জয়ার অভিনয় প্রশংসিত। বিদ্যা সিনহা মিম ‘দাগ হৃদয়ে’ ও ‘সাপলুডু’ নামে দুটি ছবি নিয়ে লড়াই করার চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু ভাগ্য তার সহায় ছিল না। মাহিয়া মাহি ‘অন্ধকার ও ‘অবতার’ নিয়ে যুদ্ধে নেমেছিলেন বটে, কিন্তু নায়ক ও পরিচালক নির্বাচনে ভুলের কারণে তাকেও খেসারত দিতে হয়েছে। অন্যদিকে ‘নোলক’ ছবিতে শাকিব খানকে নিয়েও শেষ রক্ষা হল না ববির। ‘বেপরোয়া’ নিয়েও হোঁচট খেতে হয়েছে তাকে। আইরিনও ‘আকাশমহল’ এবং ‘পদ্মার প্রেম’ নামে দুটি ব্যবসায়িকভাবে ব্যর্থ ছবি নিয়ে এ বছর উপস্থিত ছিলেন। আরেক নায়িকা পরীমনি এ বছর কায়েস আরজুসহ ‘আমার প্রেম আমার প্রিয়া’ নামে একটি ছবি নিয়ে হাজির হয়েছিলেন। কিন্তু এ মেয়েটি যে ইন্ডাস্ট্রিতে একেবারেই ‘অচল’ সেটা কেন পরিচালকরা বোঝেন না, এটাই বলা মুশকিল! অন্যদিকে পূজা চেরিকে এ বছর ‘প্রেম আমার-২’ নামে যৌথ প্রযোজনার একটি ছবিতে দেখা গেছে। কিন্তু এ ছবিটিও ব্যবসায়িকভাবে ব্যর্থ। এ ছাড়া নাট্যাভিনেত্রী অর্চিতা স্পর্শিয়া চলতি বছর ‘আবার বসন্ত’ ও ‘কাঠবিড়ালী’ নামে দুটি ছবি নিয়ে হাজির হয়েছেন। এর মধ্যে ‘আবার বসন্ত’ প্রশংসিত হলেও ব্যবসায়িক সফলতা নেই। অন্যদিকে ‘কাঠবিড়ালী’ বছর শেষে মাত্র একটি হলে মুক্তি দেয়া হবে বলে এ ছবির সফলতা কিংবা ব্যর্থতার হিসাব হয়তো আগামী বছরের খেরোখাতায় লেখা হবে।

সিনে পর্দায় হাজির ছিলেন তাহসান ও আসিফ আকবর

চলতি বছর গায়ক তাহসান কলকাতার নায়িকা শ্রাবন্তীকে নিয়ে মোস্তফা কামাল রাজের ‘যদি একদিন’ ছবি দিয়ে চেষ্টা করেছেন সিনে বাজারে নিজের অবস্থান তৈরি করার জন্য। কিন্তু সে আশায় গুড়েবালি। অথচ একই চেষ্টায় জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী আসিফ আকবর একেবারে বছরের শেষ দিকে এসে নিজেরই ৯টি গান নিয়ে নির্মিত ‘গহীনের গান’ নামে একটি ছবি দিয়ে বাজিমাত করে দিয়েছেন। ব্যবসায়িক সফলতার হিসাব-নিকাশে এখনও চূড়ান্ত না হলেও বছর শেষে আসিফ যে ধামাকা দিয়েছেন সেটা একমাত্র শাকিব খান ছাড়া ইন্ডাস্ট্রির পরিচিত কিংবা আলোচিত অন্য কোনো নায়কই পারেননি।



অ্যাড বিভাগ

শিরোনাম »
ঝুঁকিতে থাকা দেশগুলোকে বাড়তি অর্থ প্রদানের আহ্বান শেখ হাসিনার কুয়েতের আমিরের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শোক বৃহস্পতিবার ইউএনও ওয়াহিদা খানমকে ছাড়পত্র দেওয়া হচ্ছে দলীয় প্রার্থী নিয়ে আ.লীগের দুই পক্ষের পাল্টাপাল্টি কর্মসূচি রিফাত হত্যায় স্ত্রী আয়শাসহ ৬ জনের মৃত্যুদণ্ড কভিড সংকট মোকাবিলায় প্রয়োজন সমন্বিত রোডম্যাপ প্রধানমন্ত্রীর ধানমন্ডিতে নির্মাণাধীন ভবনের কার্নিশ ভেঙে ৩ জনের মৃত্যু ২০৩০ সালের মধ্যে সব মাধ্যমিক বিদ্যালয় হবে ডিজিটাল মা-বাবার ভালোবাসায় ভাগ বসানোয় শিশু মিমকে হত্যা কোভিড-১৯ মহামারী ডিজিটাল পরিসেবার শক্তিকে উন্মোচিত করেছে: প্রধানমন্ত্রী মেট্রোরেলের সবকিছু ওলট-পালট করে দিয়েছে করোনা করোনায় আরও ৩৭ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬৬৬ ঝুঁকি নিয়ে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় মির্জাপুরের মেয়র হলেন আ.লীগের সালমা কোভিড-১৯ মোকাবেলায় অনুদান গ্রহণ প্রধানমন্ত্রীর ওয়াইডব্লিউসিএ স্কুলের অভিভাবকদের সড়ক অবরোধ শীতে করোনার প্রকোপ বাড়ার আশঙ্কা প্রস্তুতি নেয়ার আহ্বান প্রধানমন্ত্রী বিএনপির আন্দোলনের ডাক মিথ্যাবাদী রাখালের গল্পের মতো ট্রাম্পকে পাঠানো চিঠিতে বিষ সংকট নিরসনে সমুদ্রপথে আসছে পিয়াজ ভারতে করোনা শনাক্ত ৫০ লাখ ছাড়াল ওবায়দুল কাদেরকে পদত্যাগ করতে বললেন রিজভী তুরস্কের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্কের ‘গভীরতার নেপথ্যে ডিসেম্বরের আগে স্কুল না খুললে ষষ্ঠ শ্রেণিতে ‘অটো’ প্রমোশন রোহিঙ্গাদের নিজ দেশে ফিরে যেতে হবে : প্রধানমন্ত্রী দৃষ্টি প্রতিবন্ধী বাচ্চাদের ‘জীবন বদলে দেওয়া’ ডিভাইস দিচ্ছেন মেসি সাদেক বাচ্চুকে হারিয়ে শোকাহত চলচ্চিত্র অঙ্গন পরীক্ষা ছাড়াই সার্টিফিকেট পাবে শিক্ষার্থীরা অস্থির পেঁয়াজের বাজার দাম বাড়ছে হু হু করে করোনার হটস্পট এখন ভারত